ফারাক্কা বাঁধ খুলেছে ভারত, বাংলাদেশে বন্যার আশঙ্কা

A+ A- No icon

বর্ষার শুরুতেই কিছুটা প্রাণ ফিরেছিল পদ্মায়। ধীরে ধীরে শুরু হয়েছে স্রোতধারা। নদীর এ প্রবাহে ভেসে চলেছে কচুরিপানা। চলছে জেলেদের নৌকাও। আর তাদের জালে উঠে আসছে ছোট ছোট মাছ। সংশ্লিষ্টরা বলছেন, বর্ষায় নিয়মিতভাবে বৃষ্টিপাত হওয়ায় পদ্মা নদীর পানি বাড়ছে। আশ্বিনে সাধারণত পারি কমতে থাকে। তবে এবার যেনো আশ্বিনে এসে ভরা বর্ষা। পানি বিপদসীমা ছুঁই ছুঁই। ফারাক্কা বাঁধের ১০৯টি গেট খুলে দেয়ার ফলে এখন পানি আরও বেড়েছে। সোমবার পানির উচ্চতা ছিল ১৮.০১ সেন্টিমিটার। যা বিপদসীমার দশমিক ৪৯ সেন্টিমিটার নিচ দিয়ে।

 

রাজশাহী পানি উন্নয়ন বোর্ড (পাউবো) জানিয়েছে, পদ্মার পানির উচ্চতা ১৮ দশমিক ৫০ মিটারের বেশি হলে তাকে বিপদসীমা অতিক্রম হিসেবে ধরা হয়। গত ১৫ বছরে মাত্র দুইবার পদ্মা নদীর পানি বিপদসীমা অতিক্রম করেছে। এর মধ্যে ২০০৪ থেকে ২০১২ সাল পর্যন্ত টানা ৯ বছর রাজশাহীতে পদ্মার পানি বিপদসীমা অতিক্রম করেনি। কেবল ২০০৩ সালের ১৯ সেপ্টেম্বর রাজশাহীতে পদ্মার সর্বোচ্চ উচ্চতা ছিল ১৮ দশমিক ৮৫ মিটার। এরপর ২০১৩ সালের ৭ সেপ্টেম্বর রাজশাহীতে পদ্মা বিপদসীমা অতিক্রম করে। ওই বছর পদ্মার সর্বোচ্চ উচ্চতা ছিল ১৮ দশমিক ৭০ মিটার। সর্বশেষ গেল বছরের ২৮ আগস্ট রাজশাহীতে পদ্মার পানির প্রবাহ উঠেছিল সর্বোচ্চ ১৮ দশমিক ৪১ মিটার।

 

এরপর থেকেই কমতে শুরু করে পানি। এক সময় কয়েকভাগে নদী বিভক্ত হয়ে পরিণত হয় বালুচরে। পাউবো সূত্রে জানা গেছে, চলতি বছরের মার্চে একবার পদ্মার পানির সর্বনিম্ন উচ্চতা হয়েছিল মাত্র ৭ দশমিক ৯৬ মিটার। এরপর গত ২৩ জুন থেকে পদ্মার পানির উচ্চতা আবার বাড়তে শুরু করেছে। সর্বশেষ শুক্রবার রাজশাহীতে পদ্মার পানির উচ্চতা মাপা হয় ১০ দশমিক ৪৮ মিটার। এখন ক্রমেই পানি বৃদ্ধি পেতে থাকবে বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্ট বিভাগের কর্মকর্তারা। পাউবো রাজশাহীর মিটার রিডার এনামুল হক জানান, ফারাক্কা তাদের ১০৯টি গেট খুলে দিয়েছে বলে তারা জানতে পেরেছেন। ওইপাড়েও বন্যা শুরু হয়েছে। ফারাক্কার গেটগুলো খুলে দেয়ায় পানি বেড়েছে।

Comment As:

Comment (0)