ঘাটেই ইলিশের হালি ৪ হাজার

A+ A- No icon

লক্ষ্মীপুরের মেঘনায় ভরা মৌসুমেও কাঙ্খিত ইলিশ মিলছে না। জেলেদের জালে পর্যাপ্ত ইলিশ ধরা না পড়ায় দামও চড়া। ঘাটেই ইলিশের হালি (৪টি) বিক্রি হয়েছে ৪০০০ হাজার টাকায়। সন্ধ্যায় কমলনগরের লুধূয়া মাছঘাটে ইলিশের হালি চার হাজার টাকায় বিক্রি হয়েছে। প্রতিটি ইলিশ ৯০০ থেকে ১০০০ গ্রাম (১ কেজি ওজনের)। ঘাটে গিয়ে দেখা যায়, সন্ধ্যায় জেলেরা মাছ নিয়ে ঘাটে ফিরছেন। ক্রেতা-বিক্রেতার উপস্থিতিতে সরগরম ঘাট। অন্যসব দিনের চেয়ে আজ কিছুটা বেশি ইলিশ ধরা পড়েছে। যে কারণে ঘাট ছিল জমজমাট। কোনো জেলেকে খালি হাতে নদী থেকে ফিরতে হয়নি।

 

সন্ধ্যায় চর ফলকন গ্রামের রইজল মাঝি মাছের ঝুঁড়ি ঘাটে ফিরেন। ইলিশ আড়তে রাখতেই ব্যবসায়ী ও স্থানীয় লোকজন ভিড় জমায়। ইলিশের দাম ডাকাডাকি শুরু হয়। চার হাজার টাকায় বিক্রি হয় তার একহালি ইলিশ। স্থানীয় জেলেরা বলছেন, নদীতে ইলিশ নেই। যে কারণে পর্যাপ্ত ইলিশ ধরা পড়ছে না। প্রচুর ইলিশ ধরা না পড়ায় দাম বেশি। আষাঢ়-শ্রাবণ গত দুই মাস নদীতে থেকে প্রায় প্রতিদিন খালি হাতে ফিরতে হয়েছে। ভাদ্র মাসের শুরু থেকে জেলেদের জালে দু’চারটা করে ইলিশ ধরা পড়ে। গত কয়েক কয়েক দিন কিছু ইলিশ ধরা পড়ছে। তবে তাও পর্যাপ্ত নয়। কমলনগর উপজেলা সিনিয়র মৎস্য কর্মকর্তা আবদুল কুদ্দুস বলেন, প্রচুর বৃষ্টি ও নদীতে পানি বাড়তে থাকলে সাগর থেকে ঝাঁকে ঝাঁকে ইলিশ আসবে। জেলেদের জালে ধরা পড়বে প্রচুর ইলিশ। দামও কমবে।

Comment As:

Comment (0)