সর্বশেষ:
পাকিস্তানে আবাসিক এলাকায় উড়োজাহাজ বিধ্বস্ত, নিহত ৯৭ করোনায় আক্রান্ত হলে উচ্চ মনোবল রাখা জরুরি শনিবার বাংলাদেশের আকাশে চাঁদ দেখা যায়নি। সোমবার ঈদুল ফিতর উদযাপিত হবে । স্ত্রীসহ করোনা আক্রান্ত সৈয়দ মঞ্জুর এলাহী করোনার প্রথম ভ্যাকসিন তৈরির দাবি জানালো ইতালি

শীতে ঘুরে আসুন ছুটি রিসোর্ট

A+ A- No icon

শীতের অবসরে কোথাও না কোথাও যেতে ইচ্ছে হয়। ঢাকায় যারা থাকেন, তাদের জন্য কাছেই রয়েছে অনেক রিসোর্ট। তার মধ্যে একটি ছুটি রিসোর্ট। ঢাকার কাছে হওয়ায় গাজীপুর জেলায় অবস্থিত সুন্দর ও মনোরম এ রিসোর্ট থেকে ঘুরে আসতে পারেন।


অবস্থান: গাজীপুরের জয়দেবপুর উপজেলার সুকুন্দি গ্রামে প্রায় ৫০ বিঘা জমির ওপর যত্নে গড়ে তোলা হয়েছে ছুটি রিসোর্ট। ভাওয়াল জাতীয় উদ্যান সংলগ্ন জায়গায় গ্রামীণ আবহে তৈরি করা হয়েছে এ অবকাশ কেন্দ্র।


বৈশিষ্ট্য: এখানে রয়েছে নৌভ্রমণ এবং সংরক্ষিত বনে তাঁবু টানানোর ব্যবস্থা। এছাড়াও আছে ছনের ঘর, ২১টি এসি-নন এসি কটেজ, সুইমিং পুল, বার্ড হাউস, ভেষজ বাগান, ফল, সবজি ও ফুলের বাগান, দুটি পিকনিক স্পট, কনফারেন্স রুম এবং কিডস জোন।


প্রকৃতির ছোঁয়া: রিসোর্টে পাখির কলরব, শেয়ালের হাঁক, বাঁদুড়, জোনাকির আলো ও ঝিঁঝিঁ পোকার গুঞ্জন তো আছেই। এছাড়া পূর্ণিমা রাতে কোনো বৈদ্যুতিক আলো জ্বলে না।


মাছ শিকার: রিসোর্টের বিশাল ৩টি লেকে নির্দিষ্ট ফি দিয়ে যেমন খুশি মাছ শিকার করা যায়।


খেলাধুলা: রিসোর্টে দুটি খেলার মাঠ রয়েছে। সেখানে অতিথিদের জন্য রয়েছে ফুটবল, ক্রিকেট, ব্যাডমিন্টন খেলার ব্যবস্থা।


খাবার: এখানে অতিথিদের মৌসুমী ফল উপহার দেওয়া হয়। সকালের নাস্তায় চালের রুটি, চিতই পিঠা, ডাল ভুনা, সবজি ও মুরগির গোশত পরিবেশন করা হয়। রিসোর্টের রেস্টুরেন্টে বাংলা, ইন্ডিয়ান, চাইনিজ, থাই এবং কন্টিনেন্টাল খাবার পাওয়া যায়। এছাড়া গ্রামীণ পিঠার ব্যবস্থা রয়েছে।


ভাড়া: ছুটি রিসোর্টে ২৪ ঘণ্টার জন্য কটেজ ভাড়া নিতে ৫-১০ হাজার টাকা লাগে। কনফারেন্স রুম ভাড়া নিতে ব্যয় করতে হয় ২০-৫০ হাজার টাকা। ১০০-২০০ জনের পিকনিকের জন্য ভাড়া লাগে প্রায় ৯০ হাজার টাকা। সব মূল্যের সাথে ২৫% ভ্যাট ও সার্ভিস চার্জ প্রযোজ্য।


কমপ্লিমেন্টারি: প্রতিটি রুম বা কটেজ বুকিংয়ের সাথে কমপ্লিমেন্টারি হিসেবে থাকবে সুইমিং পুল, প্লে গ্রাউন্ড, স্পোর্টস জোন, হেলথ ক্লাব, কিডস জোন, বোটিং, ব্রেকফাস্ট, ফ্রুট বাস্কেট ও পানি।


ডে আউট প্যাকেজ: ছুটি রিসোর্টে ডে আউটের জন্যে রয়েছে বিশেষ প্যাকেজ। সর্বনিম্ন ৭-৮ জনের গ্রুপের জন্য সকালের নাস্তা, দুপুরের খাবার, ঐতিহ্যবাহী দেশীয় খাবার ও পিঠা, বিশ্রামের জন্যে এসি রুম ও আরও অনেক সুযোগ-সুবিধা রয়েছে। এ প্যাকেজে জনপ্রতি ২৫৩০ টাকা লাগে। তবে আগেই বুকিং করে যেতে হবে।


যেভাবে যাবেন: নিজস্ব বা যেকোনো পরিবহনে গাজীপুরের চৌরাস্তায় এসে সেখান থেকে গাজীপুর ডিসি অফিসের সামনে (রাজবাড়ী) যেতে হবে। ডিসি অফিসের সামনে থেকে সিএনজিতে ৩ কিলোমিটার দূরে আমতলী বাজারের কাছেই সুকুন্দি গ্রামে যেতে পারবেন। সেখানেই ছুটি রিসোর্ট পেয়ে যাবেন।

Comment As:

Comment (0)