৮০ বছরে টম অ্যান্ড জেরি

A+ A- No icon

ইঁদুর-বিড়াল যুগলের বিখ্যাত কার্টুন চরিত্র টম অ্যান্ড জেরি ৮০ বছরে পা দিয়েছে আজ। ১৯৩৯ সালে বিল হ্যান্না ও জো বারবেরা হলিউডের মেট্রো গোল্ডউইন মেয়ার স্টুডিওতে চরিত্রগুলো প্রথম আঁকেন। তাদের আঁকা প্রথম ছবিগুলো ভিত্তি করে ১৯৪০ সালের ১০ ফেব্রুয়ারিতে প্রথম ৯ মিনিটের এক রিলের একটি এ্যানিমেটেড ছবি রিলিজ হয়। 

 

টম একটি বিড়াল এবং জেরি একটি ছোট ইঁদুর, যাদের নানা রকম দুষ্টুমি কার্টুনের প্রতিপাদ্য। এই কার্টুনের নির্মাতা বিল হ্যান্না ও জো বারবেরা ১৯৪০ সালে তারা প্রথমবার প্রকাশ করেন 'পুস গেটস দ্য বুটস।' অভিষেক ছবিটি সফলতা পায় এবং নির্মাতা স্টুডিও সেরা অ্যানিমেটেড শর্টফিল্ম বিভাগে অস্কার মনোনয়ন পায়। তবে যেই দু'জন অ্যানিমেটর ছবিটি তৈরি করেন তাদেরকে কোনো কৃতিত্ব দেয়া হয়নি। দুই অ্যানিমেটরকে স্টুডিওর ম্যানেজাররা বলেন যেন তারা নিজেরা সব কৃতিত্ব নেয়ার জন্য উদগ্রীব না হন।

 

তাদের মানসিকতার পরিবর্তন হয় টেক্সাসের এক প্রভাবশালী শিল্পপতির চিঠিতে। চিঠিতে ওই ব্যক্তি জানতে চান, ইঁদুর-বিড়ালের চমৎকার কার্টুনটি আবার কবে দেখতে পাবো। প্রথম পর্বে তাদের নাম ছিল জ্যাসপার ও জিঙ্কস, পরে যা পরিবর্তিত হয় টম ও জেরিতে। বারবেরার মতে, কার্টুনের চরিত্রগুলো কথা বলবে কি না, তা নিয়ে কোনো আলোচনা হয়নি নিজেদের মধ্যে। তবে চার্লি চ্যাপলিনের মত নীরব চলচ্চিত্র দেখে বড় হওয়া নির্মাতারা জানতেন যে কোনো ডায়লগ না থাকলেও একটি চলচ্চিত্রকে যথেষ্ট হাস্যরসাত্মক হিসেবে উপস্থাপন করা যায়।

 

কার্টুনের চরিত্রদের সব কার্যকলাপকে ফুটিয়ে তোলে স্কট ব্র্যাডলির আবহ সঙ্গীত আর টমের প্রায় মানুষের মত চিৎকারের পেছনে কন্ঠ দেন হ্যান্না নিজে। পরের দুই দশকে প্রায় ১০০টি ছোট পরিসরের কার্টুন তৈরির পেছনে ছিলেন হ্যান্না ও বারবেরা। প্রতিটি পর্ব তৈরি করতে কয়েক সপ্তাহ লাগতো এবং প্রায় ৫০ হাজার ডলার খরচ হতো। কাজেই প্রতিবছর হাতে গোনা কয়েকটি পর্বই তৈরি করা সম্ভব হতো। সমৃদ্ধ হাতে আঁকা অ্যানিমেশন ও সূক্ষ্ম খুঁটিনাটি সহ দৃশ্যপট থাকায় সারা বিশ্বেই এই টম অ্যান্ড জেরির সর্বশ্রেষ্ঠ কার্টুন চিত্র।

 

হলিউড ফিচার ফিল্ম ক্যাটাগরিতে সাতটি অ্যাকাডেমি অ্যাওয়ার্ড পায় এই ফিল্মগুলো। কার্টুন ইতিহাসবিদ জেরি বেক, যিনি কার্টুন চলচ্চিত্র তৈরির বিভিন্ন ধাপে কাজ করেছেন। তিনি বলেন,কার্টুনগুলো আপনি এখনই দেখেন অথবা শিশু অবস্থাতেই দেখে থাকেন, কোন সময়ে এগুলো তৈরি করা হয়েছে জানলে আপনি অবাক হবেন, সে নিশ্চয়তা আমি দিতে পারি।আপাতদৃষ্টিতে সহিংস কিছু কাহিনীর চিত্রায়ন ও ইঙ্গিতপূর্ণ হাস্যরসাত্মক দৃশ্যপট থাকলেও বিশ্বজুড়ে এখনও দারুণ জনপ্রিয় টম অ্যান্ড জেরি।

 

জাপান থেকে পাকিস্তান পর্যন্ত পৃথিবীর সবখানেই শিশুদের টেলিভিশনে এই কার্টুন দেখতে পাওয়া যায়। চীনে টম অ্যান্ড জেরির একটি নতুন মোবাইল ফোন গেম ১০ কোটির বেশি মানুষ ব্যবহার করে। এর পাশাপাশি এই যুগে এসেও টম অ্যান্ড জেরি আশ্চর্জজনকভাবে নতুন নতুন হেডলাইন তৈরি করতে সক্ষম হয়েছে। ২০১৬ সালে মিসরের শীর্ষ এক কর্মকর্তা অভিযোগ করেন, মধ্যপ্রাচ্য সহিংসতা ছড়ানোর পেছনে ভূমিকা রাখছে এই কার্টুন।

 

ইরানের শীর্ষ নেতা অন্তত দুইবার যুক্তরাষ্ট্রের সাথে তাদের সম্পর্ককে তুলনা করেন টম ও জেরির মধ্যকার সম্পর্কের মাধ্যমে। কয়েক দশক ধরে নিয়মিতভাবে বিবিসি'র প্রচারিত অনুষ্ঠানের তালিকায় থাকার কারণে যুক্তরাজ্যেও ব্যাপক জনপ্রিয়তা পায় এই কার্টুন। ২০১৫ সালে এক জরিপে যুক্তরাজ্যের প্রাপ্তবয়স্কদের মধ্যে সবচেয়ে জনপ্রিয় কার্টুন হিসেবে উঠে আসে টম অ্যান্ড জেরির নাম।

 

প্রথম তৈরি হওয়ার পর থেকে আশি বছরে বহুল পরিচিত ইঁদুর ও বিড়ালের খুনসুটির কাহিনী নিয়ে শিশুদের কাছে জনপ্রিয় কার্টুনের পাশাপাশি গীতিনাট্যভিত্তিক একটি চলচ্চিত্রও তৈরি করা হয়। ওই ছবিতে চরিত্রগুলো গান গাইতো এবং কথাও বলতো। বিল হ্যান্না মারা যান ২০০১ সালে এবং জো বারবেরার মৃত্যু হয় ২০০৬ সালে।

 

মারা যাওয়ার এক বছর আগে জো বারবেরা শেষবারের মত টম অ্যান্ড জেরির একটি পর্ব তৈরি করেন, যেটি ছিল সঙ্গী বিল হ্যান্নাকে ছাড়া তার তৈরি করা টম অ্যান্ড জেরির প্রথম পর্ব।টম অ্যান্ড জেরির বর্তমান স্বত্বাধিকারী ওয়ার্নার ব্রাদার্স এবছরের বড়দিনের আগে নতুন একটি লাইভ-অ্যাকশন ফিল্ম বাজারে ছাড়বে। ক্লো গ্রেস মোরেৎজ ও কেন জেওং এই ফিল্মটিতে কাজ করবেন, এছাড়া এটি সম্পর্কে বিশেষ কিছু জানা যায় না। 

Comment As:

Comment (0)