পাঁচটি পয়সাও পাননি জানালেন কৃষ্ণকলি

A+ A- No icon

কাজী কৃষ্ণকলি ইসলাম কলার টিউন থেকে ইউটিউব, কত জায়গাতেই না গান শুনিয়ে যাচ্ছেন। অর্থাৎ এসব প্ল্যাটফর্মে ব্যবহৃত হয়ে আসছে তাঁর গান। মনিটাইজ করা বহু ইউটিউব চ্যানেল মেধাস্বত্ব আইন ভেঙে ব্যবহার করছে তাঁর গান। এসব প্ল্যাটফর্ম থেকে কখনো কোনো সম্মানী পাননি কৃষ্ণকলি। নিজের গানগুলোকে একত্র করতে সম্প্রতি একটি ইউটিউব চ্যানেল খুলেছেন এই শিল্পী। কৃষ্ণকলি অফিসিয়াল নামের ওই চ্যানেলে তাঁর নতুন গানগুলোর সঙ্গে ধীরে ধীরে পাওয়া যাবে পুরোনো গানগুলো। কৃষ্ণকলির অ্যালবামগুলো ছিল জনপ্রিয় ও ব্যবসাসফল। শিল্পী হিসেবে তিনি পেয়েছেন গ্রহণযোগ্যতা ও খ্যাতি। ২০০৭ সালে ‘সূর্যে বাঁধি বাসা’ অ্যালবামটি দিয়ে আত্মপ্রকাশ করেন তিনি। ‘আলোর পিঠে আঁধার’ ও ‘বুনোফুল’ নামে পরে আরও দুটি অ্যালবাম প্রকাশ করেন তিনি। ২০১০ সালে ‘মনপুরা’ সিনেমায় ‘যাও পাখি বলো তারে’ গানটির জন্য শিল্পী চন্দনা মজুমদারের সঙ্গে যৌথভাবে শ্রেষ্ঠ নারী কণ্ঠশিল্পী হিসেবে পান জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার। এ ছাড়া তিনি মেরিল-প্রথম আলো পুরস্কারও পেয়েছেন।


এতকাল পরে কেন ইউটিউবে চ্যানেলের কথা ভাবছেন এই শিল্পী? কৃষ্ণকলি বলেন, ‘ডিজিটাল প্ল্যাটফর্মগুলোতে আমার গাওয়া গানগুলো লাখ লাখ ভিউ হয়ে আছে। সেসব জায়গা থেকে এখন পর্যন্ত একটা চৌকোনা পাঁচ পয়সাও আমি পাইনি। আগেও টেলিকমগুলো কলার টিউন হিসেবে আমার গানগুলো ব্যবহার করেছে। সেখান থেকেও কোনো পয়সা আসেনি। এতকাল করে মনে হলো আমার একটা অবস্থান নেওয়া দরকার।’ কৃষ্ণকলি মনে করেন, ডিজিটাল বাংলাদেশের একজন শিল্পী হিসেবে নিজের মেধাস্বত্ব ফিরে পাওয়ার অধিকার রাখেন তিনি। তিনি বলেন, ‘আইন অনুযায়ী আমার ইনটেলেকটুয়াল প্রোপার্টি পাঁচ বছরের বেশি কেউ অউন করতে পারবে না। এটা নিয়ে আমি এখন থেকে লড়াই করব। এ কারণে আমি মনে করছি, আমার একটি ইউটিউব চ্যানেল দরকার।’


চ্যানেল করার আগে নতুন গানের দল করেছেন কৃষ্ণকলি। এত দিন নিজে লিখেছেন, সুর করেছেন, গেয়েছেন। এখন দল করা প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘আমার ও অর্কের (কৃষ্ণকলির বর অর্ক সুমন) সঙ্গে বেশ কজন মিউজিশিয়ান কাজ করেন। তাঁরা অন্য জায়গাতেও সময় দেন, কিন্তু আমাদের সঙ্গে কাজের ব্যাপারে তাঁরা ভীষণ আন্তরিক। তাঁদের প্রতিশ্রুতিশীলতা ও দায়িত্বশীলতা আমাকে মুগ্ধ করেছে। আমার মনে হয়েছে, সবার মেধা যুক্ত হয়ে যেহেতু গানগুলো প্রকাশিত হচ্ছে, তাই তাদের নিয়ে “গানের দল ও কৃষ্ণকলি”র যাত্রা শুরু হলো।’


সম্প্রতি ‘প্রাকৃত হয়ে বাঁচি’ শিরোনামে একটি নতুন গান প্রকাশ করেছে গানের দল ও কৃষ্ণকলি। কৃষ্ণকলির ইউটিউব চ্যানেলে শিগগিরই আরও বেশ কিছু নতুন গান প্রকাশ করবে দলটি। সম্প্রতি কান চলচ্চিত্র উৎসবে জায়গা করে নিয়েছে কৃষ্ণকলি নির্মিত প্রথম তথ্যচিত্র ‘এনওসি’। উৎসবের ৭৩তম আসরের বাণিজ্যিক শাখা ‘মার্শ দ্যু ফিল্ম’-এ অংশ নিতে যাচ্ছে তাঁর এ তথ্যচিত্র। সর্বশেষ প্লেব্যাক হিসেবে গিয়াস উদ্দিন সেলিম পরিচালিত ‘স্বপ্নজাল’ ছবিতে ‘থেমে থাকে উদাস দুপুর’ গানটিতে কণ্ঠ দেন কাজী কৃষ্ণকলি ইসলাম।

Comment As:

Comment (0)