মেকআপ না করেও সতেজ থাকা যায়

A+ A- No icon

সহজাত সৌন্দর্য বা ন্যাচারাল বিউটি সবারই কাম্য। নিজেকে ভালোবাসুন। মন ভালো রাখতে যা করতে চান, তা করুন। জীবনে সবকিছুতে ভারসাম্য রাখুন। প্রিয়জনকে সময় দিন, নিজেকে সময় দিন। তাহলেই থাকা যাবে সতেজ। মেকআপ না করেও সতেজ থাকা যাবে সারা দিন। ভেতর থেকে সতেজ থাকাটাই বাহ্যিক সৌন্দর্যের মূলমন্ত্র। এর সঙ্গে চাই সঠিক খাদ্যাভ্যাস আর সামান্য যত্ন। এতেই সৌন্দর্য পরিপূর্ণ হয়ে ওঠে। সুন্দর থাকতে হলে রূপচর্চায় খুব বেশি সময় বা শ্রম দিতে হবে, বিষয়টা এমন নয়।


চাই সুস্থ মন


ঘরে-বাইরে নানান কাজ। দৈনন্দিন জীবনে কাজের চাপ থাকেই। কর্মক্ষেত্রে সমস্যা হতে পারে। মানসিক চাপ থাকতে পারে। সঙ্গে কিছু ‘বিশেষ শুভাকাঙ্ক্ষী’ যদি সদা সর্বদা আপনার ব্যক্তিজীবন নিয়ে খারাপ মন্তব্য করতে থাকেন, তাহলে তো কথাই নেই। প্রত্যেক বাঙালি মেয়ের এমন বাস্তবতা মেনে নিয়েই জীবনে এগিয়ে যেতে হয়। ‘পাছে লোকে কিছু বলে’—এই লোকদের কথা মাথায় রাখতে গেলে এগোনো তো দূরের কথা, পিছিয়ে পড়ে অশান্তিতে ভুগতে হবে। সৌন্দর্যেরও বাজবে বারোটা! তাই আপনার কাজটা আপনি করুন। সৎ থাকুন। আপনার দায়িত্ব আপনি পালন করুন। এরপর যা হওয়ার হবে। হাসিখুশি থাকুন। চাপ হিসেবে নেবেন না কোনো কিছুকেই।


সুস্থ দেহে মনের আবাস


সঠিক খাবারদাবার বেছে নিন। সময়ের খাবার সময়েই খেতে হবে। সুষম খাবার তো খাবেনই। সুন্দর থাকতে কমলা, পেয়ারা, কলা, গাজর, বাঁধাকপি প্রভৃতি খেতে পারেন। পানি ও তরল খাবার খেতে হবে পর্যাপ্ত। একটু পরপর তরল খাবার গ্রহণ করুন সারা দিনে। তবে চা-কফি অতিরিক্ত নয়। তেল-চর্বি কম খাওয়াই ভালো। সেদ্ধ খাবার খাওয়ার অভ্যাস করতে পারেন। শরীর সুস্থ রাখতে শরীরচর্চার বিকল্প নেই। ঘুমকে অবহেলা করলেও চলবে না।


রোজকার যত্ন


পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন থাকা সৌন্দর্যের অন্যতম পূর্বশর্ত। ত্বক ও চুল পরিষ্কার রাখুন। ঘন ঘন চুল আঁচড়াতে হবে, পানি দিয়ে মুখ ধুতে হবে। ত্বকে ময়েশ্চারাইজার ব্যবহার করুন। ঠোঁটে দিতে পারেন লিপবাম। ওয়াটার থেরাপি কাজে লাগাতে পারেন (দৈনিক ৫ বেলা, প্রতিবেলায় ২৫ বার করে মুখে পানির ঝাপটা দিন খুব জোরে)। ওয়াটার থেরাপি দেওয়ার সময় মুখে একটু ব্যথা লাগলেও ক্ষতি নেই। এই থেরাপি ত্বককে উজ্জ্বল করে, ভেতর থেকে ত্বক পরিষ্কার হয়, মুখে বয়সের ছাপ কম পড়ে—এমন নানান উপকার। বাইরে যাওয়ার আগে সানস্ক্রিনসামগ্রী ব্যবহার করা, ব্যাগে সানস্ক্রিনসামগ্রী ও ময়েশ্চারাইজার রাখা, রাতে অবশ্যই ত্বক পরিষ্কার করা—এসব তো নিত্যদিনের ব্যাপার। সাধারণ এসব যত্নেই আপনি হয়ে উঠবেন সুন্দর, তবে অবশ্যই সুস্থ দেহ ও মনের পূর্বশর্ত মেনে।

Comment As:

Comment (0)