রোহিঙ্গাদের মোবাইল সিম স্থানীয়দের নামে নিবন্ধিত

A+ A- No icon

কক্সবাজারের উখিয়ায় বিভিন্ন শরণার্থী ক্যাম্পে রোহিঙ্গাদের ব্যবহৃত মোবাইল ফোনের সীম স্থানীয় লোকজনের নামে নিবন্ধিত। স্থানীয়রা নিজেদের জাতীয় পরিচয়পত্র দিয়ে সিম নিবন্ধন করে বেশি টাকায় রোহিঙ্গাদের কাছে বিক্রি করেছেন। কক্সবাজার জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে জেলা আইন শৃঙ্খলা কমিটির মাসিক সভায় উখিয়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) মো. নিকারুজ্জামান চৌধুরী এ কথা জানান।

 

আইন শৃঙ্খলা কমিটির মাসিক সভায় নিকারুজ্জামান চৌধুরী তার বক্তব্যে আরও বলেন, 'প্রাথমিক তদন্তে দেখা গেছে, রোহিঙ্গা শরণার্থীরা খুব একটা সীম নিবন্ধন করেনি। তবে বর্তমানে রোহিঙ্গা শরণার্থী ক্যাম্পগুলোতে যেসব মোবাইল ফোন ব্যবহার করা হচ্ছে, তা ক্রমান্বয়ে কমিয়ে আনার চেষ্টা চলছে। নতুন সীম বিক্রির বিষয়েও কড়াকড়ি আরোপ করা হয়েছে।' নিকারুজ্জামান বলেন, চাইলে ২৪ ঘন্টার মধ্যে রোহিঙ্গা ক্যাম্পগুলোতে মোবাইল ফোনের নেটওয়ার্ক বন্ধ করা যাবে। কিন্তু তাতে স্থানীয় জনগোষ্ঠী চরম দূর্ভোগের শিকার হবে।  

 

কক্সবাজার জেলা প্রশাসক মো. কামাল হোসেনের সভাপতিত্বে সভায় অন্যান্যের মধ্যে কক্সবাজারের ভারপ্রাপ্ত পুলিশ সুপার মোহাম্মদ ইকবাল হোসাইন, অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট শাজাহান আলী, জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি এডভোকেট সিরাজুল মোস্তফা, কক্সবাজার পৌরসভার মেয়র মুজিবুর রহমান, সিভিল সার্জন মোহাম্মদ আবদুল মতিন, মুক্তিযোদ্ধা মোহাম্মদ শাহজাহান, জেলা জাসদের সভাপতি নঈমুল হক চৌধুরী টুটুলসহ বিভিন্ন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

 

কক্সবাজারের উখিয়ায় বিভিন্ন শরণার্থী ক্যাম্পে রোহিঙ্গাদের ব্যবহৃত মোবাইল ফোনের সীম স্থানীয় লোকজনের নামে নিবন্ধিত। স্থানীয়রা নিজেদের জাতীয় পরিচয়পত্র দিয়ে সিম নিবন্ধন করে বেশি টাকায় রোহিঙ্গাদের কাছে বিক্রি করেছেন। বিকালে কক্সবাজার জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে জেলা আইন শৃঙ্খলা কমিটির মাসিক সভায় উখিয়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) মো. নিকারুজ্জামান চৌধুরী এ কথা জানান।

 

আইন শৃঙ্খলা কমিটির মাসিক সভায় নিকারুজ্জামান চৌধুরী তার বক্তব্যে আরও বলেন, 'প্রাথমিক তদন্তে দেখা গেছে, রোহিঙ্গা শরণার্থীরা খুব একটা সীম নিবন্ধন করেনি। তবে বর্তমানে রোহিঙ্গা শরণার্থী ক্যাম্পগুলোতে যেসব মোবাইল ফোন ব্যবহার করা হচ্ছে, তা ক্রমান্বয়ে কমিয়ে আনার চেষ্টা চলছে। নতুন সীম বিক্রির বিষয়েও কড়াকড়ি আরোপ করা হয়েছে।' নিকারুজ্জামান বলেন, চাইলে ২৪ ঘন্টার মধ্যে রোহিঙ্গা ক্যাম্পগুলোতে মোবাইল ফোনের নেটওয়ার্ক বন্ধ করা যাবে। কিন্তু তাতে স্থানীয় জনগোষ্ঠী চরম দূর্ভোগের শিকার হবে।

 

কক্সবাজার জেলা প্রশাসক মো. কামাল হোসেনের সভাপতিত্বে সভায় অন্যান্যের মধ্যে কক্সবাজারের ভারপ্রাপ্ত পুলিশ সুপার মোহাম্মদ ইকবাল হোসাইন, অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট শাজাহান আলী, জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি এডভোকেট সিরাজুল মোস্তফা, কক্সবাজার পৌরসভার মেয়র মুজিবুর রহমান, সিভিল সার্জন মোহাম্মদ আবদুল মতিন, মুক্তিযোদ্ধা মোহাম্মদ শাহজাহান, জেলা জাসদের সভাপতি নঈমুল হক চৌধুরী টুটুলসহ বিভিন্ন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

Comment As:

Comment (0)