ক্রিকেটের নাকি বৃষ্টির জয় হবে রাজকোটে

A+ A- No icon

সিরিজের জয়ের স্বপ্ন নিয়ে ভারতের গুজরাট রাজ্যের রাজকোটে দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টি ম্যাচে মুখোমুখি হবে বাংলাদেশ। ঘূর্ণিঝড় মহার কারণে অবশ্য ম্যাচটি মাঠে গড়ানো নিয়ে সংশয় রয়েছে। সব ঠিক থাকলে আজ বাংলাদেশ সময় সন্ধ্যা সাড়ে সাতটায় দুই দল মাঠে নামবে। তবে রাজকোটের ম্যাচে জয়টা বৃষ্টির নাকি ক্রিকেটের- এনিয়ে সন্দেহ আছে যথেষ্ট! ম্যাচটি সরাসরি সম্প্রচার করবে গাজী টেলিভিশন।  


তিন ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজে ১-০ তে এগিয়ে থেকে নিঃসন্দেহে আত্মবিশ্বাসে ভরপুর বাংলাদেশ। প্রথম ম্যাচ হেরে ব্যাকফুটে থাকা ভারত যে কোনও মূল্যে সিরিজে সমতায় ফিরতে চাইবে। ঘরের মাঠে চারটি টি-টোয়েন্টি সিরিজ হারের রেকর্ড অবশ্য আছে রোহিত শর্মার দলের। ইংল্যান্ড, নিউজিল্যান্ড, অস্ট্রেলিয়া ও দক্ষিণ আফ্রিকার মতো দলগুলো ভারতকে তাদের মাটিতে হারিয়েছে। এবার বাংলাদেশের সামনে সুযোগ ভারতকে আরও একটি সিরিজ হারের লজ্জা দেওয়ার।


ভারতের মাটিতে এতদিন ভারতকে হারানো বাংলাদেশের জন্য অসাধ্য ব্যাপার ছিলো। দিল্লিতে সেই কাজটাই কত সহজেই না করে ফেলেছেন মাহমুদউল্লাহরা। এই জয়ের পর বাংলাদেশের জন্য কাজটা এখন আর তেমন কঠিন বলে মনে হচ্ছে না। আজ জিততে পারলেই নিশ্চিত হবে সিরিজ। অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহও ভীষণ আত্মবিশ্বাসী, ‘অবশ্যই, এটা আমাদের জন্য দারুণ সুযোগ, বিশেষ করে আমরা যখন প্রথম ম্যাচ জিতে শুরু করেছি সিরিজ। ‍আমাদের ‍জন্য দুর্দান্ত সুযোগ, আমার মনে হয় ছেলেরা সবাই মুখিয়ে আছে। ভারতকে হারাতে হলে আমাদের সেরা ক্রিকেট খেলতে হবে। কারণ আমরা সবাই জানি তারা (ভারত) দেশ ও দেশের বাইরে সব জায়গায় শক্তিশালী দল। তাই আমাদের প্রথম বল থেকে নিজেদের সেরাটা দিতে হবে।’


এদিকে সমতা ফেরানোর ম্যাচে ভারতও ছেড়ে কথা বলবে না। সংবাদ সম্মেলনে ভারতীয় অধিনায়ক রোহিতের কথাতেই সেটা স্পষ্ট, ‘কৌশল কী হবে, আমি আপনাদের বলবো না। তবে আমি এটা নিশ্চিত করছি, আমাদের অ্যাপ্রোচে বদল আসবে। এই ম্যাচে আমাদের খেলাটা অন্যরকম হবে।’ দ্বিতীয় ম্যাচের একাদশে ভারতীয় দলে বেশ কিছু পরিবর্তন এলেও বাংলাদেশের সেই সম্ভাবনা ক্ষীণই বলা চলে। সাকিব-তামিমের অনুপস্থিতিতে জুনিয়ররা বেশ ভালোই দায়িত্ব পালন করেছেন। বিশেষ করে আফিফ হোসেন, নাঈম শেখ ও আমিনুল  ইসলাম বিপ্লব বাংলাদেশ ক্রিকেট দলে তারুণ্য ও ছন্দ নিয়ে এসেছেন। তাদের শারীরিক ভাষা দিয়ে দলের চিত্র অনেকটা বদলে দিয়েছেন। সব মিলিয়ে তাই প্রথম ম্যাচের একাদশের ওপর ভরসা রাখার জোর সম্ভাবনা রয়েছে বাংলাদেশের টিম ম্যানেজমেন্টের।


তবে সব কিছু ম্লান হয়ে যেতে পারে ঝড়ের কারণে। বুধবার স্থানীয় সময় সন্ধ্যা পৌনে সাতটায় দিকে ঝড়ো হাওয়া শুরু হয়। বৃহস্পতিবার ভোরে ১২০ কিলোমিটার বেগে আছড়ে পড়েছে এই ঘূর্ণিঝড়টি। এর প্রভাবে সারাদিনই রাজকোটে বৃষ্টি হবে। সেই বৃষ্টিতে খেলা হওয়ার সম্ভাবনা ক্ষীণই বলা চলে। যদিও স্থানীয় কিউরেটররা বলেছেন, বিকাল পর্যন্ত বৃষ্টি হলেও স্টেডিয়ামের উন্নত পানি নিষ্কাশন ব্যবস্থা থাকায় এই ম্যাচ মাঠে গড়ানোর ব্যাপারে আশাবাদী তারা।


প্রকৃতির ওপর তো কারও হাত নেই। এখন অপেক্ষা ঘূর্ণিঝড়ের প্রভাব কাটিয়ে রাজকোটের ঝকঝকে আকাশ দেখার। আর সেটা হলেই দুই দলের সামনে সমান সুযোগ তৈরি হবে। বাংলাদেশ যেমন চাইছে ম্যাচটি জিতে সিরিজ নিশ্চিত করতে, অন্যদিকে ভারতও চাইছে ম্যাচটি জিতে সমতায় ফিরতে। দুই দলের চাওয়া ছাপিয়ে বৃষ্টি না জিতে যায়, এমন ভয়ই ক্রিকেট ভক্তদের মনে। এখন দেখার অপেক্ষায় বাংলাদেশ ও ভারতের ক্রিকেটেপ্রেমীরা জয়টা কার হয়- ক্রিকেটের নাকি বৃষ্টির!

Comment As:

Comment (0)