কবিতা: আমার বড্ড তাড়া আছে

A+ A- No icon

আমার বড্ড তাড়া আছে
তাড়া আছে ঘুমানোর আগে পড়ন্ত মেঘলা বিকেলে
হৃদয়ের জমাটবাঁধা রক্ত
নয়নের নোনা জলে গুলিয়ে
হৃদয়ের ধমনী এক ছিঁড়ে ফেলে কলম বানিয়ে
তাদের কথামালা লিখবার,
 যাদের কথা কোনোদিন শোনেনি কেও
লিখা হয়নি কনো অমর কবিতায়
হৃদয়ের রক্তঝরা ঝরঝরে  যতো সব কিচ্ছা,
ম’রে গেছে যারা একদা চপলা অজানা ঝর্নার মতো
অনাদরে –অগোচরে,  এখনো লাগাতার ম’রছে; 


তাড়া আছে আমার ঢের তাড়া আছে
তাড়া আছে সাগরের সৈকত চুমে যাওয়া
ঢেউয়ের কানে কানে ফিসফিস ক’রে
কয়েকটি কথা বলার
তাড়া আছে
কান খাড়া ক'রে সেই সব মানুষের
অনেক কথা শোনার, যাদের আদিবাস
জবরদখল ক’রে
করেছে তাদের অচেনা পরদেশী
গড়েছো গাদা গাদা কঙ্কালের উপর রক্তরাঙা
চিরসুখের বাসর;


তাড়া আছে-
মরুসাইমুমের সামনে দাঁড়িয়ে জোরে জোরে
ওই সব নিষ্পাপ অভুক্ত শিশুদের
জন্য অনেক কথা বলার
যারা স্বার্থের মারপ্যাঁচে
নিষ্ঠুর পৃথিবীর নজিরবিহীন নির্মমতার শিকার
বিকশিত হবার আগেই ঝ’রে গেছে
এখনো ঝরছে বিষাক্ত কীটচোষা কুঁড়ির মতো; 


তাড়া আছে বিশাল বাঁওড়ের জলে
ভেসে থাকা একঝাঁক অতিথি পাখির
নরম ফ’রে ঠোঁট রেখে কান পেতে কিছু
কথা বলার-
কিছু কথা শোনার, বেশ
তাড়া আছে; 

Comment As:

Comment (0)