অন অ্যারাইভাল ভিসা স্থগিত করেছে শ্রীলঙ্কা

A+ A- No icon

বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তের ৩৯টি দেশের নাগরিকের জন্য অন অ্যারাইভাল ভিসা সুবিধা স্থগিত করেছে শ্রীলঙ্কা। ইস্টার সানডের সকালে দেশটিতে ভয়াবহ জঙ্গি হামলায় ৩৫৯ জনের প্রাণহানির পর বৃহস্পতিবার অন অ্যারাইভাল ভিসা কর্মসূচি স্থগিতের এ ঘোষণা দেয়া হয়।


শ্রীলঙ্কার পর্যটন মন্ত্রী জন আমারাতুঙ্গা এক বিবৃতিতে বলেছেন, ‘৩৯ দেশের নাগরিকদের জন্য অন অ্যারাইভাল ভিসা ব্যবস্থাপনার প্রস্তুতি থাকা সত্ত্বেও দেশের বর্তমান নিরাপত্তা পরিস্থিতি বিবেচনা করে আমরা তা স্থগিত রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছি।’ বিবৃতিতে লঙ্কান এই মন্ত্রী বলেন, হামলায় বিদেশি সংশ্লিষ্টতা ছিল বলে তদন্তে বেরিয়ে এসেছে। যে কারণে আমরা এই সুবিধার (অন অ্যারাইভাল ভিসা) অপব্যবহার চাই না।


দেশটিতে মে থেকে অক্টোবর ছয় মাস পর্যটন শিল্পের রমরমা পরিস্থিতি বিরাজ করে। এই সময়ে দেশটিতে বেশি বিদেশি পর্যটক টানতে অন অ্যারাইভাল ভিসা কর্মসূচি চালু করা হয়েছিল। চলতি বছরের প্রথম তিন মাসেই দেশটিতে প্রায় ৭ লাখ ৪০ হাজার ৬০০ পর্যটক গেছেন। গত বছর শুধুমাত্র ভারত থেকে প্রায় সাড়ে চার লাখ পর্যটক শ্রীলঙ্কায় যান। তবে চলতি বছরে দক্ষিণ এশিয়ার এই দ্বীপ রাষ্ট্রে দশ লাখের বেশি ভারতীয় পর্যটক ঘুরতে যাবেন বলে প্রত্যাশা করা হচ্ছে। ইস্টার সানডের সকালে রোববার কলম্বোর তিনটি গীর্জা ও তিনটি বিলাসবহুল হোটেলে জঙ্গিগোষ্ঠী ইসলামিক স্টেটের (আইএস) আত্মঘাতী বোমা হামলায় ৩৫৯ জন নিহত ও আরো কমপক্ষে ৫০০ জন আহত হন। লঙ্কান প্রেসিডেন্ট মাইথ্রিপালা সিরিসেনা বলেছেন, হামলার সঙ্গে সংশ্লিষ্ট সন্দেহে ইতোমধ্যে ১৩৯ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।


১০ বছর আগে দেশটির হিন্দু এবং জাতিগত তামিলদের বিরুদ্ধে শুরু হওয়া যে গৃহযুদ্ধের অবসান ঘটেছিল তারপর এবারই প্রথম শ্রীলঙ্কায় সাম্প্রদায়িক দাঙ্গার শঙ্কা দেখা দিয়েছে। ইস্টার সানডের জঙ্গি হামলার পর দেশটির সংখ্যালঘু মুসলিমদের বাড়ি ঘরে হামলা চালানোর অভিযোগ উঠেছে। গীর্জা এবং হোটেলে ভয়াবহ আত্মঘাতী ওই বোমা হামলার পর কলম্বোর কাছের বন্দর নগরী নেগোম্বো ছেড়ে শত শত মুসলিম পালিয়ে যাচ্ছেন বলে বৃহস্পতিবার ব্রিটিশ দৈনিক দ্য গার্ডিয়ান এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে। এতে বলা হয়েছে, ইস্টার সানডের দিনের ওই হামলার পর সাম্প্রদায়িক দাঙ্গার আশঙ্কায় তারা এলাকা ছেড়ে অন্যত্র পালিয়ে আত্মগোপন করছেন।


নেগোম্বো শহরের সেবাস্তিয়ান গীর্জায় আত্মঘাতী বোমা হামলায় হতাহতের ঘটনার পর থেকে ওই এলাকার মুসলিমদের নানাভাবে হুমকি দিচ্ছে স্থানীয় বৌদ্ধরা। বুধবার কলম্বোর কাছের এই বন্দরনগরী ছেড়ে পালিয়েছেন কয়েকশ’ মুসলিম। পাকিস্তানি বংশোদ্ভূত এই মুসলিমদের প্রতিশোধ নেয়া হবে বলে হুমকি দেয়া হচ্ছে। এমন পরিস্থিতিতে তারা বাসে গাদাগাদি করে চড়ে এলাকা ছাড়ছেন। শ্রীলঙ্কার ২ কোটি ২০ লাখ মানুষ রয়েছে। এর মধ্যে সংখ্যালঘু খ্রিস্টান, মুসলিম ও হিন্দু সম্প্রদায়ও আছে। কিন্তু দেশটিতে জাতিগত দাঙ্গার যে শঙ্কা দেখা দিয়েছে; সেই শঙ্কা এড়িয়ে চলতে সক্ষম হয়েছেন খ্রিস্টানরা।

Comment As:

Comment (0)