বন্ধ হয়ে যাচ্ছে রিজেন্ট এয়ারওয়েজ

A+ A- No icon

পর্যাপ্ত উড়োজাহাজ না থাকায় গত কয়েক মাসের ব্যবধানে আন্তর্জাতিক ও অভ্যন্তরীণ কয়েকটি রুটের ফ্লাইট কমাতে বাধ্য হয়েছে বেসরকারি বিমান সংস্থা রিজেন্ট এয়ারওয়েজ। বন্ধও রয়েছে কয়েকটি রুট। অন্যদিকে বন্ধ হওয়ার আশঙ্কায় রিজেন্টের যাত্রী পরিবহন না করতে গত মাসে সবস্টেশনে সতর্কবার্তা পাঠিয়েছে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স।


বিমানের বিপণন ও বিক্রয় বিভাগ থেকে পাঠানো ওই সতর্কবার্তায় বলা হয়েছে, রিজেন্ট এয়ারওয়েজের ফ্লাইট ইন্টারাপশান মেনিফেস্ট (এফআইএম) গ্রহণ না করতে বিমানের ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ নির্দেশনা দিয়েছে। পরবর্তী ঘোষণা না দেয়া পর্যন্ত এ নির্দেশনা মানার ব্যাপারেও বলা হয়েছে। এমনকি অতীতে এফআইএম চুক্তির আওতায় কোনো যাত্রী পরিবহন করে থাকলে সে বাবদ বকেয়া রয়েছে কি-না জানাতে স্টেশনগুলোর কর্মকর্তাদের নির্দেশ দিয়েছে বিমানের বিপণন বিভাগ।


উড়োজাহাজের পাশাপাশি অনেক আগে থেকেই রিজেন্ট এয়ারওয়েজে বড় ধরনের আর্থিক সংকটে রয়েছে বলে জানিয়েছেন এয়ারলাইন্সটিতে কর্মরত কয়েকজন কর্মকর্তা। তারা জানান, প্রতিষ্ঠানটিতে সাতশর বেশি জনবল রয়েছে। এর মধ্যে বৈমানিক রয়েছেন প্রায় ৫০ জন। অর্থ সংকটের কারণে এসব বেতন-ভাতা পরিশোধে প্রায় সমস্যায় পড়ে এয়ারলাইন্সটি।


আর্থিক সংকট প্রসঙ্গে ইমরান আসিফ বলেন, দুটো উড়োজাহাজের ইঞ্জিন বসে যাওয়ায় স্বাভাবিকভাবেই ফ্লাইট পরিচালনায় ব্যাহত হয়েছে। তবে আগামী দুই মাসের মধ্যেই এসব সমাধান হয়ে যাবে। একটি উড়োজাহাজের ইঞ্জিন মেরামতের জন্য ইন্দোনেশিয়া পাঠানো হবে, যা জানুয়ারির মাঝামাঝি চলে আসবে। আর জানুয়ারির শেষ নাগাদ আরেকটি উড়োজাহাজ সী-চেকের জন্য পাঠানো হবে। যেটি ফেব্রুয়ারির মধ্যে বহরে যুক্ত হবে। উড়োজাহাজগুলো বহরে আসলেই কমিয়ে আনা ফ্লাইটগুলো আবার শুরু করা হবে।

Comment As:

Comment (0)